logo-img

১৯, আগস্ট, ২০১৯, সোমবার | | ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


ক্রাইস্টচার্চে হামলায়:পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে ৩ জনের মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে

রিপোর্টার: নিউজ ডেস্ক | ২৩ মার্চ ২০১৯, ০৮:৩৩ পিএম


ক্রাইস্টচার্চে হামলায়:পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে ৩ জনের মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাসী হামলায় যে পাঁচ বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন তাদের মধ্যে তিনজনের মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে। একাধিক কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহে মরদেহগুলো নিউজিল্যান্ড থেকে দেশে আসবে।

বাকি দুইজনের মরদেহ শুক্রবার (২২ মার্চ) জুমার নামাজের পর ক্রাইস্টচার্চের স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

নিহত বাংলাদেশিরা হলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. আবদুস সামাদ ও সিলেটের ফরিদ আহমেদের স্ত্রী হোসনে আরা আহমেদ, চাঁদপুরের মোজাম্মেল হক, নরসিংদীর পলাশ উপজেলার জাকারিয়া ভূঁইয়া ও নারায়ণগঞ্জের মোহাম্মদ ওমর ফারুক।

ক্যানাবেরায় বাংলাদেশ মিশনের উপ-হাইকমিশনার তারেক আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি  বলেন, ‘শুক্রবার জুমার নামাজের পর অধ্যাপক ড. আবদুস সামাদ ও সিলেটের ফরিদ আহমেদের স্ত্রী হোসনে আরা আহমেদ এই দুইজনের মরদেহ দাফন হওয়ার কথা।’

তারেক আহমেদ বলেন, ‘চাঁদপুরের মোজাম্মেল হক, নরসিংদীর পলাশ উপজেলার জাকারিয়া ভূঁইয়া ও নারায়ণগঞ্জের মোহাম্মদ ওমর ফারুকের মরদেহ ফিউনারেল হোমে আছে। তাদের বিষয়ে হাইকমিশন থেকে এরই মধ্যে ছাড়পত্র (নো-অবজেকশন) দেওয়া হয়েছে।

উপ-হাইকমিশনার তারেক আহমেদ বলেন, ‘খুব দ্রুত তাদের মরদেহ দেশ পৌঁছবে। তবে আমাদেরকে এখনো ফ্লাইট শিডিউল জানানো হয়নি। আশা করছি যে আগামী সোমবারে ৩ জনের ফ্লাইট সিডিউল জানতে পারব।’

তারেক আহমেদ আরও বলেন, ‘তিনজনের মধ্যে একজনের সহধর্মিনী মরদেহ দেশে নেওয়ার জন্য ক্রাইস্টচার্চে পৌঁছেছেন। আরেকজনের আজ শনিবার (২৩ মার্চ) রাতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।’

হাইকমিশনের এ কর্মকর্তা সারাবাংলাকে বলেন, ‘বাকি একজন নারায়ণগঞ্জের ওমর ফারুকের স্ত্রী সন্তান-সম্ভবা। তার ভিসা হয়েছে। কিন্ত তিনি এখন ভ্রমণ করার মতো পরিস্থিতিতে নেই।’

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, ১৫ মার্চ সন্ত্রাসী হামলায় তিন বাংলাদেশি আহত হন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জের লিপির অবস্থা সংকটাপন্ন। এ ছাড়া একজন এখনো নিখোঁজ রয়েছে। পায়ে গুলিবিদ্ধ মুতাসসিম (গাজীপুর) ও শেখ ‍হাসান রুবেল এখন আশঙ্কামুক্ত।

ক্যানাবেরায় বাংলাদেশ মিশনের উপ-হাইকমিশনার তারেক আহমেদ জানান, আহত লিপির শারীরিক অবস্থার খুব বেশি উন্নতি হয়নি। তার মোট চারটা অস্ত্রোপচার হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন জানান, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে ১৫০ জন বাংলাদেশি বসবাস করছেন। তারা বাংলাদেশ হাইকমিশনের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করছেন। বাংলাদেশিরা এখন ওইখানে নিরাপদে আছেন, ভালো আছেন।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও জানান, ‘নিউজিল্যান্ডে প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিরাপত্তার জন্য বাংলাদেশ হাইকমিশন নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যোগাযোগ রাখছে। হাইকমিশন থেকে সরাসরি ও অকল্যান্ডে বাংলাদেশের অনারারি কনস্যুলারের মাধ্যমে নিউজিল্যান্ডে বসবাসরত বাংলাদেশিদের শান্ত থাকতে, বাড়ির ভেতরে থাকতে, জনসমাবেশ এড়াতে বলা হয়েছে। এছাড়া দেশটির আইনি নির্দেশ মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে ভ্রমণ সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।’

গত ১৫ মার্চ (শুক্রবার) জুমার নামাজের সময় নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে নৃশংস বন্দুক হামলা চালানো হয়। হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত ও ৪৮ জন আহত হন।

স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে প্রথমে ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদ ও পরে লিনউড মসজিদে জুমার নামাজ আদায়রত মুসল্লিদের ওপর হামলা চালান অস্ট্রেলিয় যুবক ব্রেনটন হারিসন টারান্ট।

নিহত ৫০ জনের মধ্যে ২৬ জনকে গত শুক্রবার (২২ মার্চ) জুমার নামাজের পর ক্রাইস্টচার্চের স্থানীয় কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।