logo-img

২৬, জুন, ২০১৯, বুধবার | | ২২ শাওয়াল ১৪৪০


‘আমি তো আর সেই ছবি তুলিনি’

রিপোর্টার: অনলাইন ডেস্ক | ১৭ জানুয়ারী ২০১৯, ০৫:৫৬ পিএম


‘আমি তো আর সেই ছবি তুলিনি’

'প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার মন্ত্রীসভা গঠনে চমক দিয়ে নতুনদের রাজনীতিতে যোগদান করায় উৎসাহ দিয়েছেন। তিনি রাজনীতির পরিবেশ ও প্রেক্ষাপট এতো সুন্দর করেছেন যে আমি মনে করে এই পরিবেশে নতুনদেরও রাজনীতিতে  আসা উচিত। যারা রাজনীতিতে ছিলেন না, তারাও এখন রাজনীতি নিয়ে নতুনভাবে ভাববেন। যারা কখনও রাজনীতি করেননি তাদের অনেকেই রাজনীতে এসে ভালো করেছেন। আমার বিশ্বাস সুযোগ পেলে আমিও ভালো করবো’- কথাগুলো বলছিলেন তিনবার চলচ্চিত্রে জাতীয় পুরস্কার পাওয়া অভিনেত্রী মৌসুমী।

এমপি হওয়ার প্রত্যাশা নিয়ে সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তিনি। বুধবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিানি।

তবে তিনি মনোনয়নপত্র কেনার পর একটি ছবি কে বা কারা ফেসবুকে পোস্ট করে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছন এ নায়িকা। বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার এফডিসিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। 

মৌসুমী সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি তাকে এমপি হওয়ার সুযোগ দেন তবে নারী ও শিশুদের নিয়ে কাজ করবেন তিনি।  

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ওই ছবিতে  ‘বাংলাদেশ উৎসব’ নামে এক অনুষ্ঠানে তারেক জিয়ার সঙ্গে মৌসুমীকে দেখা যায়। এ বিষয়ে মৌসুমী বলেন, ‘আমি চলচ্চিত্র শিল্পী। শিল্পী হিসেবে আমার বিচরণ সব জায়গাতেই থাকে। সবার সঙ্গে মিশবো। সবার সঙ্গেই কথা বলবো। তারকা হওয়ায় অনেকেই আমাদের দাওয়াত করেন। সে দাওয়াতে অংশ নিতে কত জায়গায়ই তো আমাদের যেতে হয়। সেখানে কতজনই তো আমাদের ছবি তোলেন। আমি তো সেই ছবি তুলিনি। কখনও বলিওনি আমি কোন দলের সমর্থক। কোন দলের হয়ে কাজ করতে চাই। এখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সুযোগ করে দিয়েছেন। তাই এমপি হয়ে মানুষের সেবা করতে চাইছি।'

এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন, 'এখন ফেসবুকে যারা নানা ধরনের ছবি পোস্ট করে আমাকে হেয় করতে চাইছেন তারা হয়তো আমাকে পছন্দ করেন না। আমাকে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে দাঁড় করানোর চেষ্টা করছেন।’

অভিনেত্রী মৌসুমী বলেন, ‘আমি যেহেতু কখনও বলিনি আমি কোন দলের হয়ে কাজ করবো। তাহলে কেন এমন প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। যারা এ প্রশ্ন তুলছেন তাদের  বিনয়ের সঙ্গে বলতে চাই, তারা এই প্রশ্ন তুলে আমার কাজকে বাধাগ্রস্ত করতে পারবেন না। আমি ২০-২৫ বছর চলচ্চিত্রে কাজ করেছি। সততার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করেছি। দর্শকদের ভালোবাসা নিয়ে কাজ করেছি। আজকে আমার কাছে দর্শকদের প্রতিদান দেয়ার সুযোগ। প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে যদি তার সিলেকশনে সংসদে যেতে পারি তাহলে যে জায়গাগুলোতে আমার কাজ করার সুযোগ রয়েছে সেগুলো করতে পারলে নিজেকে ধন্য মনে করবো।'  

মৌসুমী মনে করেন, যারা সক্রিয়াভাবে দল করবে শুধু তারাই রাজনীতে আসতে পারবে- এমন কোন কথা নেই। রাজনীতি সবার জন্য উন্মুক্ত। এমপি হওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাস কতটা? জানতে চাইলে 'কেয়ামত থেকে কেয়ামত' নায়িকা বলেন, 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একটা ইন্টারভিউ আমার যথেষ্ঠ আত্মবিশ্বাস যুগিয়েছে; যেখানে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এই ৫০ জনের সিলেকশন তিনি নিজে করবেন, নিরপেক্ষা হবে। এই কথাটিই আমাকে উৎসাহিত করেছে। সাহস যুগিয়েছে। আমি আস্থা পেয়েছি। এখন যদি তিনি আমাকে যোগ্য মনে করেন তবে আমাকে দিয়ে কাজ করাবেন। অবশ্যই আমিও করবো।’

অভিনয়ের পাশাপাশি নানা সামাজিক কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন মৌসুমী। সেই সঙ্গে জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠন ইউএনএফপিএতে সুভেচ্ছা দূত হিসেবে কাজ করছেন। এবার এমপি হয়ে দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে চান বলে জানালেন অভিনেত্রী মৌসুমী।